+880772-356191

প্রতিষ্ঠানের ইতিহাস

“শিক্ষা জাতির মেরুদন্ড” কথাটি সর্বজন স্বীকৃত। অন্য দিকে জাতীয় জীবনে সার্বিক উন্নয়নের পূর্বশর্ত শিক্ষা। বাংলাদেশে শিক্ষা ক্ষেত্রে খ্রিস্টান মিশনারীগণ প্রসংশনীয় ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন। মিশনারীদের দ্বারা প্রতিষ্ঠিত ও পরিচালিত সেন্ট যোসেফস্ স্কুল এন্ড কলেজ প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকে জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলের মধ্যে শিক্ষার আলো বিতরণ করে চলছে। ত্রিশের দশকে জীবন ও জীবিকার তাগিদে এতদ অঞ্চলে খ্রিষ্ট ধর্মালম্বিদের বসবাস শুরু হয়। অত্র এলাকায় তেমন কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান না থাকায় প্রয়াত ফ্রান্সিস গমেজ স্ব-উদ্যোগে নিজ বাড়ির আঙিনায় গুটিকতক ছেলে-মেয়েকে পড়াতে শুরু করেন। প্রয়াত ফ্রান্সিস গমেজের উদ্যোগে অনুপ্রাণিত হয়ে এবং স্থানীয় চাহিদার গুরুত্ব বিচার করে স্বর্গীয় ফা: কার্নেভেল্লী ও ফা: থোমাস কাত্তানেয় স্থানীয় লোকদের সহযোগিতায় বনপাড়াতে ১৯৩০ খ্রি: একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন। প্রাথমিক বিদ্যালয়টি ”সেন্ট যোসেফস্ প্রাথমিক বিদ্যালয়” নামে পথ চলতে শুরু করে। ধীরে ধীরে খ্রিস্টান মিশনারী কর্তৃক অসাস্প্রদায়িক চেতনায় প্রাথমিক বিদ্যালয়টি অত্র এলাকার শ্রেষ্ঠ বিদ্যাপীঠে পরিণত হয়। সেন্ট যোসেফের দীর্ঘ পথ পরিক্রমায় প্রতিষ্ঠার ৩৩ বছর পর ১৬৬৩ খ্রিস্টাব্দে প্রাথমিক থেকে উন্নিত করে ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে ছাত্র-ছাত্র ভর্তি করা হয়। অত:পর ১৯৬৫ খ্রিস্টাব্দে রাজশাহী শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক ৯ম শ্রেণিতে পাঠদান অনুমতি পায় এবং ১৯৬৭ খ্রিস্টাব্দে ১২ জন ছাত্র-ছাত্রি এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। ১৯৬৩ খ্রিস্টাব্দ হতেই প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শাখা পৃথকভাবে চলতে থাকে। এসময়ে ফা: ভেরপেল্লী ও ফা: চেসকাতোর প্রচেষ্টায় সেন্ট যোসেফস্ উচ্চ বিদ্যালয়ের জন্য বনপাড়া মিশন প্রাঙ্গনে একতলা পাকা ভবন নির্মাণ করা হয়। ফা: বেরেত্তা ও ফা: বাইও জিওবান্নী-এর প্রচেষ্টায় ১৯৭৮ খ্রিস্টাব্দে বর্তমান মূল ভবনটির নির্মাণ কাজ শুরু হয় এবং ১৯৮০ খ্রিস্টাব্দে কাজ সমাপ্ত হয়। ১৯৮০ খ্রিস্টাব্দে ১৯ মার্চ বিদ্যালয়টি পুরতন ভবন হতে নতুন ভবনে স্থানান্তরিত হয়।

দীর্ঘ ৫২ বছর পর শিক্ষার আলো আরো প্রসারিত করার লক্ষ্যে এবং অত্র এলাকার দরিদ্র ও নৃ গোষ্ঠি যারা শহরে গিয়ে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণ করতে সক্ষম নয় তাদের কথা চিন্তা করে রাজশাহী ধর্ম প্রদেশের শিক্ষা কমিশন এবং রাজশাহীর ধর্মপাল বিশপ জের্ভাস রোজারিও আর্থিক সহায়তায় এবং ফা: লাজারুশ রোজারিও’র পরিচালনায় ২০১৩ খ্রিস্টাব্দে কলেজ ভবন নির্মাণ শুরু হয় এবং ২০১৫ খ্রিস্টাব্দে নির্মাণ কাজ শেষ হয়। ২০১৫ খ্রিস্টাব্দের ১ জুলাই রাজশাহীর ধর্মপাল বিশপ জের্ভাস রোজারিও এক বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মাধ্যমে কলেজ শাখার উদ্বোধন করেন।

প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকে সেন্ট যোসেফস্ স্কুল এন্ড কলেজ সুনামের সাথে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। রাজশাহী ধর্মপাল বিশপ জের্ভাস রোজারিও’র পরামর্শে এবং নির্দেশনায় সেন্ট যোসেফস্ প্রাথমিক বিদ্যালয়কে মাধ্যমিক শাখার সাথে যুক্ত করা হয়। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে যাাঁরা প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন তাঁরা হলেন:
মো: সোলায়মন আলী খান ০১/০৪/১৯৬৩ থেকে ২৬/০২/১৯৬৪
মো: শাহজাহান মন্ডল ২৭/০২/১৯৬৪ থেকে ১৩/০৩/১১৯৬৪
ফা: আঞ্জেলো মার্জিয়নী ১৪/০৩/১৯৬৪ থেকে ২৮/০৬/১৯৬৫
ফা: লুইজি পিনোস ১৯/০৬/১৯৬৫ থেকে ০৭/০৪/১৯৭৬
ফা: আন্তনিয় বাইও ০৮/০৪/১৯৭৬ থেকে ৩১/১২/১৯৭৯
ফা: বেরেত্তা জিওবানøী ০১/০১/১৯৮০ থেকে ৩১/১২/১৯৮৩
মি: গৌর পদ মন্ডল ০১/০১/১৯৮৪ থেকে ৩১/০৩/২০১১
০১/০৪/২০১১ খ্রিস্টাব্দ তারিখে ফা: লাজারুশ রোজারিও প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। বর্তমানে প্রাথমিক থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত একই প্রশাসনের অধীনে অধ্যক্ষ ফা: লাজারুশ রোজারিও’র দায়িত্বে পরিচালিত হচ্ছে।